কিডনি ক্যানসার নিয়ে সাবধান!

এপ্রিল ২৭, ২০১৭, ৫:২৪ অপরাহ্ণ

বৃটেনে গত ১০ বছরে কিডনি ক্যানসারে আক্রান্তের হার বৃদ্ধি পেয়েছে শতকরা ৪০ ভাগ। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আগামীতে এই হার আরো বাড়বে। ক্যানসার রিসার্চ ইউকে’র তথ্যমতে, শুধু ইংল্যান্ডেই গত এক দশকে স্থ্থূলতা বা মুটিয়ে যাওয়ার কারণে কিডনি ক্যানসারে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ২০ হাজার মানুষ। আরো বলা হয়েছে, ২০৩৫ সাল নাগাদ বৃটেনে কিডনি ক্যানসারে আক্রান্তের হার আরো ২৬ ভাগ বৃদ্ধি পাবে। যদি তা-ই ঘটে তাহলে ওই সময়ে বৃটেনে ক্যানসার আক্রান্তের হার দাঁড়াবে ৬৬ ভাগ। অর্থাৎ ক্রমবর্ধমান হারে কিডনি ক্যানসারে আক্রান্তের সংখ্যা বা হার বৃদ্ধি পাবে। এ খবর দিয়েছে লন্ডনের অনলাইন দ্য এক্সপ্রেস। এতে বলা হয়েছে, আক্রান্তদের মধ্যে এক-চতুর্থাংশ অর্থাৎ প্রায় ২৪ ভাগ আক্রান্তের পেছনে সম্পর্ক আছে অতিরিক্ত ওজন। আর ২৪ ভাগ আক্রান্ত হন ধূমপান থেকে। গবেষকরা দেখিয়েছেন, স্থূলতা বা মোটা হওয়ার সঙ্গে সম্পর্ক আছে ১৩ রকমের ক্যানসারের। এর মধ্যে অন্যতম কিডনি ক্যানসার। তবে কিভাবে অতিরিক্ত ওজনের কারণে কিডনি ক্যানসার হয় তা যথাযথভাবে এখনো ব্যাখ্যা দেন নি বিজ্ঞানীরা। তবে এক ব্যাখ্যায় বলা হয়েছে, ইনসুলিনের প্রতি বাধা থেকে এ ঘটনা ঘটতে পারে। ইনসুলিন হলো একটি হরমোন। কার্বোহাইড্রেট ও চর্বি ভেঙে ফেলতে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান এই হরমোন বা ইনসুলিন। দেহের ভেতরে এই হরমোনকে কাজ করতে সহায়তা করে কিডনি। এক্ষেত্রে কারো দেহের ওজন যদি অনেক বেশি হয়ে যায় তাহলে তাতে এই ইনসুলিনের কার্যকারিতায় বাধা সৃষ্টি হতে পারে। ফলে দেহে ইনসুলিনের আধিক্য দেখা দিতে পারে। এতে কোষগুলো দ্রুত ভেঙে যেতে পারে। সব কিডনি ক্যানসার প্রতিরোধযোগ্য নয়। তবে কিছু সতর্কতা অবলম্বন করলে মানুষ এ রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমিয়ে আনতে পারে। এক্ষেত্রে করণীয় হতে পারে চিনিমুক্ত পানীয় পান করা। প্রতিদিন মোটামুটি একই সময়ে খাবার খাওয়া। দিনে ১০ হাজার কদম হাঁটা। এসব করলে ওজন কিছুটা নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব হতে পারে। আবার কারো মূত্র ত্যাগের সময় যদি রক্ত ঝরে তাহলে তার যে মূত্রথলি বা কিডনির ক্যানসার হয়ে থাকতে পারে সে বিষয়ে অনেকেই সচেতন নন। মূত্রথলিতে ক্যানসার আক্রান্ত হওয়ার অর্ধেকটারও বেশি লক্ষণ হলো মূত্রের সঙ্গে রক্ত যাওয়া। তবে কিডনির জন্য তা অপেক্ষাকৃত কম।
উল্লেখ্য, প্রতিবছর বৃটেনে কিডনি ক্যানসারের ১১ হাজার ৯০০টি ঘটনা ধরা পড়ে। এর মধ্যে পুরুষদের সংখ্যা ৭৪০০ এবং নারীদের সংখ্যা ৪৫০০।

পড়া হয়েছে ১৩০ বার

( বি:দ্রঃ আপনভূবন ডটকম -এ প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও, কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। কপিরাইট © সকল সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আপনভূবন ডটকম )

আপনার ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে মতামত প্রদান করতে পারেনঃ