জয়ের জন্মদিনে স্পষ্ট হলো শাকিব-অপুর দূরত্ব

সেপ্টেম্বর ২৮, ২০১৭, ৪:৫৫ অপরাহ্ণ

আব্রাহাম খান জয়ের জন্মদিনের অনুষ্ঠানে আসেননি শাকিব খান। শাকিব-অপুর দূরত্ব জয়ের এই জন্মদিনেই স্পষ্ট হলো।

ছেলেকে নিয়ে টেলিভিশন লাইভে আসার পর থেকেই নাখোশ ছিলেন শাকিব খান। সে সময় শাকিবের নানামুখী  বক্তব্য বিষয়টি স্পষ্ট করেছিল। কিন্তু শাকিব সে সময় মাথা ঠাণ্ডা রেখে কৌশলে পরিস্থিতি সামাল দেন। যার কারণে পূর্বের শাকিব যেন অধিকাংশের কাছে হিরো শাকিব খান রূপেই আবির্ভূত হন।সে সময়ই শাকিবের জনপ্রিয়তা তুমুল বেড়ে যায়। যে জেনারেশন শাকিব খান বা ঢাকাই ছবির প্রতি বিমুখ ছিল তারা ঘাঁটতে শুরু করল শাকিবকে। এই জেনারেশন ইউটিউবে খুঁজে পেল এমন এক শাকিবকে যিনি সত্যিই বদলে যাওয়া শাকিব। শাকিবে মুগ্ধ ‘ট্রল্ড’ করা প্রজন্ম। ভালোবাসার প্রিয়পুত্র আব্রাহাম খান জয় সকলের নিকট প্রিয়ভাজন হয়ে ওঠেন।

যাইহোক এতদিন ধরে গুঞ্জন ছিল শাকিব খান ও অপুর মধ্যে একটি দূরত্ব রয়েছে। শাকিব অপুকে সহ্য করতে পারেন না এমন কথাও মিডিয়াপাড়ায় প্রচলিত ছিল। কিন্তু সে সবই কথার কথা ছিল। কেননা অপু কিংবা শাকিব কেউই দূরত্বের বিষয়টি স্বীকার করেননি। করতেও চাননি।কিন্তু গতকাল বুধবার শাকিব-অপুর দূরত্বের বিষয়টি স্পষ্ট হয়। এমন একদিনে বিষয়টি ‘দৃষ্টিকটূ’ হলো যে দিন পুত্রের জন্মদিন ছিল। আমন্ত্রিত অতিথিরা এমনটাই বলছিলেন। কেননা সন্তানের জন্মদিনে মায়ের পাশপাশি বাবাকেও তো খুঁজবে সবাই, এটাই স্বাভাবিক।

পুত্রকে নিয়ে টিভিতে লাইভে আসার পর থেকেই স্ত্রী অপু বিশ্বাসকে এড়িয়ে চলেন ঢাকাই ছবির শীর্ষ নায়ক শাকিব খান। বেশ কিছু উপলক্ষ এলেও অপুর মুখোমুখি হননি তিনি। লোক দিয়ে ছেলে আব্রাহাম খান জয়কে কাছে নিয়ে আদর করেছেন, সময় কাটিয়েছেন। কিন্তু নিকেতনে বাস করা অপুর বাসায় আসেন না শাকিব।

চিকুনগুনিয়া নিয়েও জয়কে শুভেচ্ছা জানাতে এসেছিলেন চিত্রনায়িকা শাবনূর। এসেছেন সংসদ সদস্য মমতাজ, নায়ক রিয়াজ, বাপ্পীসহ আরো অনেকেই। কিন্তু প্রথম জন্মদিনের কেক কাটার সময় বাবা ছিল না। অপু ছেলেকে নিয়ে নিকেতনে ভাড়াবাসায় থাকেন। তার ভাড়া দেন শাকিব। স্ত্রী-পুত্রের ভরণপোষণ দেন। স্বামী বা বাবা হিসেবে দূর থেকে দায়িত্ব পালন করেন।

শাকিবের এই অনুপস্থিতি শাকিবের শুভাকাঙ্ক্ষীরাই মেনে নিতে পারছেন না। তাঁদের ধারণা শাকিবকে ভুল বুঝিয়ে দূরে সরিয়ে রাখা হচ্ছে। শাকিবকে এমনটাও বোঝানো হয়েছে যে অপু তাঁর (শাকিব) ক্যারিয়ার ধ্বংস করার জন্যই টেলিভিশনের লাইভ অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন। শাকিব-অপুর এই দূরত্ব কী ইঙ্গিত করছে সেটাই এখন প্রশ্ন। দূরত্বের আয়তন কতটা বৃদ্ধি পাবে নাকি দূরত্ব ঘুচবে? নাকি স্পষ্টতই বিভাজন হবে? সময় বলবে কথা।

তবে কথা থেকে যায় যাদের প্রতিনিধিত্ব করছেন শাকিব কিংবা অপু কিংবা আমাদের শোবিজ তারকারা। তাঁদেরও তো প্রত্যাশা আছে। কী সেই প্রত্যাশা? সব দ্বন্দ্বের অবসান ঘটিয়ে জয়ের পিতা-মাতা হয়ে বেঁচে থাকুন অপু শাকিব।

কালের কন্ঠ

পড়া হয়েছে ৫৩৮ বার

( বি:দ্রঃ আপনভূবন ডটকম -এ প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও, কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। কপিরাইট © সকল সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আপনভূবন ডটকম )

আপনার ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে মতামত প্রদান করতে পারেনঃ