পপকর্নের ভালোমন্দ

অক্টোবর ১২, ২০১৭, ১১:১১ পূর্বাহ্ণ

ফাইল ফটো

পপকর্ন—জনপ্রিয় ও অতি পরিচিত এক খাবার। এই শুকনো খাবারটি কি ভালো, না খারাপ? অনেকেই সাশ্রয়ী এ খাবারকে অস্বাস্থ্যকর ভাবে।

আজ এই ভাবনাটা বিশেষজ্ঞদের ভাবনার সঙ্গে মিলিয়ে নেওয়া যাক।
আসলে কী?

এটা আসলে খুবই সাধারণ এক শস্য। এর বীজের মধ্যে খাদ্য উপাদান থাকে। ভেতরটা খসখসে আর শক্ত। এই বীজে তাপ দিলে ভেতরটা ফুলে-ফেঁপে ওঠে। এটা মূলত ভুট্টা থেকেই হয়। তবে বেশ কয়েক ধরনের পপকর্ন আছে। আমাদের দেশে অহরহ ভুট্টা পপকর্ন দেখা যায়। মাইক্রোওয়েভে এ কাজ খুব ভালোভাবে করা যায়।

এ ছাড়া আরো কিছু উপায়ে তাপ প্রয়োগের মাধ্যমে শস্যদানার মাংসল অংশটি ‘পপ’ করা হয়।পুষ্টি উপাদান

পপকর্নে মেলে উল্লেখযোগ্য পরিমাণ ফাইবার, পলিফেনোলিক উপাদান, অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, ভিটামিন বি ও ম্যাঙ্গানিজ।

হজমে সহায়ক

মনে রাখতে হবে, পপকর্ন আসলে একটা স্বাস্থ্যকর শস্যদানা। খনিজও মিলবে যথেষ্ট। আছে বি কমপ্লেক্স ভিটামিন ও ভিটামিন ই। হজমের বিবেচনায় এর উচ্চমাত্রার ফাইবার অতুলনীয়। দেহকে সব সময় সতেজ রাখে। পেটের যাবতীয় সমস্যাকে দূরে রাখে। হজমপ্রক্রিয়ায় আদর্শ পরিবেশ বজায় রাখতে দারুণ কাজের। কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতেও উপকারী।

কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ

এখানেও ভরসা হয়ে ওঠে ফাইবার। সাধারণত শস্যে এমন ফাইবার থাকে যা দেহের ‘খারাপ’ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়। অতিরিক্ত কোলেস্টেরল রক্তবাহী শিরা-উপশিরাগুলোকে সরু করে দেয়। ক্ষতিকর এলডিএল কোলেস্টেরল কমে আসায় কার্ডিওভাসকুলার রোগের ঝুঁকি কমে আসে। ফলে অ্যাথেরোসক্লেরোসিস, হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোকের মতো প্রাণঘাতী সমস্যার ঝুঁকি কমায়। কার্ডিয়াক সিস্টেম সুষ্ঠুভাবে পরিচালিত করতেও সহায়তার হাত বাড়ায় পপকর্ন।

গ্লুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ

রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা বেশ নিয়ন্ত্রণ করতে পারে এই খাবার। চিনির মাত্রা সামলে রেখে ইনসুলিনের কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে চলতে পারে। কাজেই ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য ভালো খবর বয়ে আনে এটা। যারা এ রোগে ভুগছে তারা নিশ্চিন্তে পপকর্ন খেতে পারে।

ক্যান্সার

বিশেষজ্ঞরা আরো একটি বিষয়ে অবাক হয়েছেন। তা হলো, পপকর্নে রয়েছে পর্যাপ্ত অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। অনেকে ভাবত, পপকর্ন হলো অস্বাস্থ্যকর জাংক ফুড। কিন্তু ধারণাটি পুরোপুরি ভুল। দূষিত পরিবেশ থেকে দেহে প্রচুর ক্ষতিকর ও দূষিত উপাদান প্রবেশ করে। এগুলো পরে ক্যান্সারের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। আর এদের ঠেকাতে দরকার শক্তিশালী অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট।

ওজন নিয়ন্ত্রণ

একটি সাধারণ কাপ পপকর্নে রয়েছে মাত্র ৩০ ক্যালোরি। এটি সমপরিমাণ আলুর চিপসের চেয়ে পাঁচ গুণ কম ক্যালোরি দেয়। অর্থাৎ ইচ্ছামতো খেতে পারবেন। আর ফাইবার থাকায় ক্ষুধা মিটবে। এতে আছে নগণ্য পরিমাণ সম্পৃক্ত ফ্যাট। তাই হৃদরোগের ঝুঁকিও কম।

–অর্গানিক ফ্যাক্টস অবলম্বনে সাকিব সিকান্দার

পড়া হয়েছে ৫৭ বার

( বি:দ্রঃ আপনভূবন ডটকম -এ প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও, কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। কপিরাইট © সকল সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আপনভূবন ডটকম )

আপনার ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে মতামত প্রদান করতে পারেনঃ