দু’বেলা ভাত খান নিশ্চিন্তে

নভেম্বর ১৪, ২০১৭, ২:২৪ অপরাহ্ণ

মোটা হওয়ার ভয়ে অনেকেই রাতে ভাতের বদলে রুটি খান। অনেকের আবার দু’বেলা ভাত না হলে চলেই না। ভারতের বেলর কলেজ অব মেডিসিনের নিউট্রিশনিস্ট থেরেসা নিকোলাসের মতে, যারা নিয়মিত ভাত খান তারা সুষম ডায়েটের অনেকের কাছাকাছি থাকেন। ভাত খাওয়ার কারণে শরীর যেমন পটাশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, আয়রন, ফোলেট ও প্রয়োজনীয় ফাইবার পায়, তেমনই ভাতে স্যাচুরেটেড ফ্যাট ও অ্যাডেড সুগার নেই। তাই ভাত খেলে মোটা হওয়ার আশঙ্কা থাকে না। এ ছাড়া চালে সোডিয়াম থাকে না। ফলে শরীরে অতিরিক্ত লবণ যাওয়ার আশঙ্কা নেই। দু’বেলা ভাত খাওয়ার ফলে সেই সঙ্গে পর্যাপ্ত পরিমাণ ডাল, সবজি, মাছ, মাংসও থাকছে ডায়েটে। ফলে শরীরের প্রোটিন, ভিটামিনের প্রয়োজনীয়তাও পূরণ হয়। অর্থাৎ সুষম আহারের পুরোটাই পূরণ হয়ে যাচ্ছে। ভাতের সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো খুব সহজে হজম হয়ে যায়। তাই গরমকালে পেট ঠাণ্ডা রাখতে দু’বেলা ভাত অনায়াসে খেতে পারেন।

নিউট্রিশনিস্ট প্রিয়া কাঠপাল বলেছেন, ভাতের গ্লাইসেমিক ইনডেক্স বেশি হওয়ার কারণে ভাত খেলে রক্তে শর্করার মাত্রা বেড়ে যায়। শরীরে এনার্জি যোগায় ভাত। তাই দুপুরে যখন কাজের জন্য এনার্জির প্রয়োজন নিশ্চিন্তে পেটভরে ভাত খেতে পারেন। রাতে যেহেতু পরিশ্রম কম হয় তাই ভাতের পরিমাণ একটু কমিয়ে দিন। সঙ্গে প্রোটিন, ফ্যাট সবকিছুই রাখুন। গরমকালে শসা, টমেটো, কুমড়া, লাউ জাতীয় সবজি খাওয়া শরীরের পক্ষে খুবই উপকারী। সেইসঙ্গে মাছের ঝোল বা চিকেন স্টু, পনির দিয়ে অনায়াসেই সেরে ফেলতে পারেন রাতের খাবার। ভালো হজম হওয়ার কারণে ঘুম ভালো হয়। ফলে সকালে আপনি এনার্জিটিক থাকতে পারেন। – আনন্দবাজার পত্রিকা

পড়া হয়েছে ৬৩ বার

( বি:দ্রঃ আপনভূবন ডটকম -এ প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও, কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। কপিরাইট © সকল সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আপনভূবন ডটকম )

আপনার ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে মতামত প্রদান করতে পারেনঃ