টিন ব্যবসায়ী থেকে ওয়ালটনের মালিক 

ডিসেম্বর ১৯, ২০১৭, ১১:৩৪ পূর্বাহ্ণ

প্রতিষ্ঠা আর সাফল্যের অন্যতম উদাহারণ ওয়ালটন গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান এসএম নজরুল ইসলাম। বাংলাদেশের ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক্স উৎপাদন শিল্পের পথিকৃৎ ছিলেন তিনি।

২০০২ সালে দেশের অন্যতম শীর্ষ ইলেকট্রনিক্স, ইলেকট্রিক্যাল ও হোম অ্যাপ্লায়েন্সেস প্রস্তুত ও বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন গ্রুপ যাত্রা শুরু করে। বর্তমানে গাজীপুরের চন্দ্রায় এ প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব জমিতে গড়ে উঠেছে ওয়ালটন হাইটেক ও ওয়ালটন মাইক্রোটেক কর্পোরেশন নামের দুটি ফ্যাক্টরি। এ ফ্যাক্টরি থেকে ইলেকট্রনিক্স, ইলেকট্রিক্যাল ও হোম অ্যাপ্লায়েন্সেস প্রস্তুত হয়ে বাজারজাত হচ্ছে দেশজুড়ে। এর অঙ্গপ্রতিষ্ঠান ড্রিম পার্ক ইন্টারন্যাশনাল, মার্সেল ও ডিজিটেক।টাঙ্গাইল পৌর এলাকার আদালত রোডে ছিল নিজস্ব টিনের ব্যবসা। এ ব্যবসায় মন্দা দেখা দেয়ায় নতুন ব্যবসার উদ্যোগ গ্রহণ করেন।

এরই ধারাবাহিকতায় ট্রাইকন টিভি তৈরি ও বাজারজাতকরণের মাধ্যমে শুরু করেন ইলেকট্রনিক্স ও ইলেকট্রিক্যাল ব্যবসা। কিছুদিন এ ব্যবসা পরিচালনার পর ২০০২ সালে এসএম নজরুল ইসলামের হাত ধরে যাত্রা শুরু করে ওয়ালটন গ্রুপ।তিনি টাঙ্গাইল কেন্দ্রীয় সমবায় ব্যাংকের পরিচালক, জমি বন্ধকি ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক, জেলা সার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ও গোসাই জোয়াইর আজিম মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি ছিলেন।

বর্তমানে ওয়ালটন গ্রুপের দায়িত্ব পালন করছেন তার ছেলে এস এম নুরুল আলম রেজভী, এস এম শামসুল আলম, এস এম আশরাফুল আলম, এস এম মাহবুবুল আলম, এস এম রেজাউল আলম ও মেয়ে নিলুফা বেগম। এছাড়া তার আরেক মেয়ে সেফালী খাতুন গৃহিণী।

উল্লেখ্য, রোববার রাত ৯টা ৪০ মিনিটে রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন ওয়ালটন গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান এসএম নজরুল ইসলাম। সোমবার সকাল ১০টায় বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় অবস্থিত ওয়ালটন গ্রুপের কর্পোরেট অফিসে (প্লট-১০৮৮, রোড- ৮০ফিট-২, ব্লক-আই, বসুন্ধরা আ/এ) তার প্রথম জানাজা ও বেলা সাড়ে ১১টায় গাজীপুরের চন্দ্রায় অবস্থিত ওয়ালটন ফ্যাক্টরিতে দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। তৃতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয় বাদ আসর টাঙ্গাইলের গোসাই জোয়াইর গ্রামে। এরপর পারিবারিক কবরস্থানে এসএম নজরুল ইসলামকে দাফন করা হয়।

ওয়ালটন গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান এসএম নজরুল ইসলামের ছোট ভাই ও ওয়ালটন গ্রুপের অপারেটিভ ডিরেক্টর আলহাজ মো. মজিবুর রহমান জানান, পারিবারিকভাবে ব্যবসায়ী ছিলেন এসএম নজরুল ইসলাম। ব্রিটিশ আমলে তিনি কর্ণফুলি পেপার মিলের ঠিকাদারি কাজে লিপ্ত ছিলেন। এরপর দেশ স্বাধীনের পর বিভিন্ন ধরনের ঠিকাদারি ব্যবসা পরিচালনা শুরু করেন।

১৯২৪ সালে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার ঘারিন্দা ইউনিয়নের গোসাই জোয়াইর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন এসএম নজরুল ইসলাম। তার বাবার নাম সরকার মো. আতোয়ার আলী। ব্যবসায়ী হওয়া সত্ত্বেও এসএম নজরুল ইসলাম নানা সমাজ সেবামূলক কর্মকাণ্ডে জড়িত ছিলেন। তার নিজস্ব জমির ওপর নির্মিত হয়েছে গোসাই জোয়াইর কমিউনিটি ক্লিনিক। এর আসবাবপত্র দাতাও ছিলেন তিনি।
কালের কন্ঠ

পড়া হয়েছে ৩১৮ বার

( বি:দ্রঃ আপনভূবন ডটকম -এ প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও, কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। কপিরাইট © সকল সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আপনভূবন ডটকম )

আপনার ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে মতামত প্রদান করতে পারেনঃ