ফিরে দেখা ২০১৭: মানবিক বাংলাদেশ, মানবাধিকার লঙ্ঘনের বাংলাদেশ

ডিসেম্বর ৩১, ২০১৭, ১২:৩৮ অপরাহ্ণ

রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশ বিশ্বে এক মানবিক রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি গড়ে তুললেও অভ্যন্তরীণ মানবাধিকার ইস্যুতে সমালোচনার মুখে ছিল সরকার৷ দ্রব্যমূল্য, প্রধান বিচারপতি, প্রশ্নপত্র ফাঁসসহ নানা ঘটনা আলোচনার জন্ম দিয়েছে এ বছর৷

২০১৭ এর ২৫শে আগস্ট থেকে নতুন করে বাংলাদেশে আসতে শুরু করে রোহিঙ্গা শরণার্থীরা৷ মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে নির্যাতনের শিকার হয়ে এ পর্যন্ত ছয় লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে এসেছেন৷ বাংলাদেশ সরকার তাদের কক্সবাজারে আশ্রয় দিয়েছে৷ এই নির্যাতিত রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ এবং শিশুদের আশ্রয়, খাবার, চিকিৎসাসহ নানা সাহায্য করছে বাংলাদেশ৷ সরকারের পাশাপাশি নানা সংগঠন ও সাধারণ মানুষ তাদের পাশে দাঁড়িয়েছে৷ শরণার্থীদের প্রতি বাংলাদেশের এই মানবিক আচরণের ভূঁয়সী প্রশংসা করেছে জাতিসংঘসহ অনেক আর্ন্তজাতিক সংগঠন৷ একটি মানবিক রাষ্ট্রের এই ভাবমূর্তি গড়ে তোলার জন্য প্রশংসিত হন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও৷

মানবাধিকার কর্মী এবং আইন ও সালিশ কেন্দ্রের  সাবেক নির্বাহী পরিচালক নূর খান বলেন, ‘‘বাংলাদেশে ২০১৭ সালে মানবাধিকার নিয়ে পরস্পরবিরোধী ঘটনা ঘটেছে৷ মিয়ানমারে নির্যাতনের শিকার রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে বাংলাদেশ যেমন মানবিক রাষ্ট্রের স্বীকৃতি পেয়েছে তেমনি গুম এবং নিখোঁজের ঘটনায় বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ মানবাধিকার পরিস্থিতি নানা প্রশ্নের মুখে পড়েছে৷ বিশেষ করে বছরের শেষ দিকে হঠাৎ করেই গুম এবং নিখোঁজের ঘটনা বেড়ে গেছে৷”

Bangladesch Flüchtlingscamp für Rohingya Witwen mit ihren Kindern (Reuters/D. Sagolj )

২০১৭ সালে বাংলাদেশ রোহিঙ্গা সংকট

জাতিগত সহিংসতা থেকে বাঁচতে এ বছরের আগস্টে আবারো বাংলাদেশে আসতে শুরু করে রোহিঙ্গারা৷ মানবিক বিবেচনায় তাঁদের আশ্রয় দেবার সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ৷ এরপর রোহিঙ্গাদের দেখতে বাংলাদেশ সফরে আসেন তুরস্কের ফার্স্ট লেডি, জর্ডানের রানি, ক্যাথলিক খ্রিষ্টানদের ধর্মগুরুসহ অনেকে৷ আন্তর্জাতিক সমালোচনার মুখে মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে সম্মতিপত্রে স্বাক্ষর করলেও রোহিঙ্গা প্রত্যাবসানে অনিশ্চয়তা এখনো কাটেনি৷

Bangladesch Cricket Fans (Getty Images/AFP/A. Dey)

২০১৭ সালে বাংলাদেশ খেলা

সময়টা মার্চ মাস, ভেন্যু কলম্বোর পি. সারা ওভাল মাঠ৷ সেখানেই নিজেদের শততম টেস্টে ঐতিহাসিক জয় পেয়েছে বাংলাদেশ৷ আর এর মধ্যে দিয়ে ক্রিকেট ইতিহাসে চতুর্থ দেশ হিসেবে শততম ম্যাচে জয় পায় টাইগাররা৷ একই সাথে এই প্রথম শ্রীলঙ্কাকে টেস্টে হারানোর স্বাদও পায় বাংলাদেশ৷ পঞ্চম দিনে চার উইকেটে জয়৷ ম্যাচ সেরা হন তামিম ইকবাল৷

Sheikh Mujibur Rahman Flash-Galerie (bdnews24)

২০১৭ সালে বাংলাদেশ ৭ই মার্চের ভাষণ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণকে ‘মেমোরি অফ দ্য ওয়ার্ল্ড’-এর স্বীকৃতি দিয়েছে ইউনেস্কো৷ ৪৬ বছর আগে ঢাকার সোহরাওয়ার্দি উদ্যানে (তৎকালীন রেসকোর্স ময়দান) স্বাধীনতাকামী ৭ কোটি মানুষকে যুদ্ধের প্রস্তুতি নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, ‘‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম৷’’

Bangladesch Feuer Zerstörung radikale Islamisten (bdnews24.com)

২০১৭ সালে বাংলাদেশ সংখ্যালঘু নির্যাতন

ধর্ম অবমাননার অভিযোগ তোলে সংখ্যালঘুদের উপর আক্রমণের ধারাবাহিক ঘটনা ঘটছে বাংলাদেশে৷ এ বছর এর মধ্যে সবচেয়ে আলোচিত ছিল রংপুরের একটি ঘটনা৷ সেখানে টিটু রায় নামের একজনের ফেসবুক পাতায় ইসলাম অবমাননামূলক পোস্ট দেয়া হয়েছে, এমন গুজব তুলে সেখানকার হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের উপর আক্রমণ চালানো হয়৷ পুড়িয়ে দেয়া হয় ঘরবাড়ি৷

Symbolbild Protest gegen Vergewaltigung (picture-alliance/Pacific Press/E. McGregor)

২০১৭ সালে বাংলাদেশ বনানী ধর্ষণ মামলা

এ বছরের মার্চে জন্মদিনের পার্টির কথা বলে বনানীর একটি হোটেলে নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া দুই তরুণীকে ধর্ষণ করা হয়৷ ঘটনার কয়েকদিন পর তরুণীরা আপন জুয়েলার্সের মালিকের ছেলে সাফাত আহমেদ ও তার দুই বন্ধু নাইম, সাদ্দামসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে৷ এ ঘটনায় একদিকে মামলা নিতে পুলিশের গরিমসির দিকটি নজরে আসে, অন্যদিকে আপন জুয়েলার্সের বিরুদ্ধে সোনা চোরাচালানসহ বেশ কিছু অভিযোগ চলে আসে সামনে৷

Fehler in Textbüchern aus Bangladesch (bdnews24.com)

২০১৭ সালে বাংলাদেশ পাঠ্যপুস্তক বিতর্ক

পাঠ্যবইয়ে ভুল বানানের ছড়াছড়ির সাথে বিষয়বস্তুর আপত্তিজনক সংযোজন, পরিমার্জন, বিয়োজন নিয়ে আলোচনা ছিল সারা বছর জুড়েই৷ অভিযোগ ওঠে, মৌলবাদী গোষ্ঠির চাপে পড়ে বিতর্কিত নানা বিষয় যেমন ঢোকানো হয়েছে, তেমনি প্রগতিশীল অনেক লেখা বাদ দেয়া হয়েছে৷ ‘ও’ তে ওড়না বা ‘ছাগলের গাছে উঠে আম খাওয়া’ অথবা আঘাত অর্থে Hurt কে Heart (হৃদয়) লেখা নিয়ে ব্যঙ্গ-বিদ্রুপও চলে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে৷

Ein Jahr nach dem BDR Aufstand (DW)

২০১৭ সালে বাংলাদেশ পিলখানা মামলার রায়

দীর্ঘ আট বছর পর ২০১৭ সালে পিলখানা হত্যাযজ্ঞ মামলার রায় ঘোষিত হয়৷ ১৫২ জন আসামির মধ্যে ১৩৯ জনেরই ফাঁসি, আটজনের যাবজ্জীবন ও চারজনকে খালাস দেওয়া হয়৷ ২০০৯ সালের ২৫ ও ২৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকার পিলখানায় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সদরদপ্তরে বিডিআর বিদ্রোহের ঘটনায় ৫৭ জন সেনা কর্মকর্তাসহ ৭৪ জন প্রাণ হারান৷ রক্তাক্ত ওই বিদ্রোহের প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশ সীমান্তরক্ষী বাহিনীর নাম বদলে করা হয় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)৷

Bildergalerie Bangladesch Andenken an den Mord an Sagar Sarowar und Meherun Runi (DW/M. Mamun)

২০১৭ সালে বাংলাদেশ গুম

বাংলাদেশে গুম বা ‘এনফোর্সড ডিসঅ্যাপিয়ারেন্স’ গত কয়েক বছর ধরেই আলোচিত বিষয়৷ ২০১৭ সালেও এ নিয়ে ছিল সোরগোল ও আতঙ্ক৷ বছরের শেষের দিকে নর্থসাউথের শিক্ষক মোবাশ্বার হাসান সিজার, সাংবাদিক উৎপল দাস ও সাবেক রাষ্ট্রদূত মারুফ জামান নিখোঁজ হন৷ এছাড়াও আলোচনায় ছিল কবি ফরহাদ মজহারের নিখোঁজ ও ১৮ ঘণ্টার মধ্যে তাঁকে উদ্ধারের ঘটনা৷ আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক) তথ্য মতে, এ বছর অন্তত ৫০ জন নিখোঁজ হয়েছেন বাংলাদেশে৷

Shital Pati-Matte ( bdnews24)

২০১৭ সালে বাংলাদেশ সিলেটের শীতল পাটি

সিলেটের ঐতিহ্যবাহী শীতলপাটি ‘দ্য ইনট্যানজিবল কালচারাল হেরিটেজ অফ হিউমানিটি’ হিসেবে জিতে নিয়েছে ইউনেস্কোর স্বীকৃতি৷

Bangladesch Kulturelle Persönlichkeiten ( bdnews24)

২০১৭ সালে বাংলাদেশ যাঁদের হারালাম

এ বছর অনেক গুণী মানুষ পাড়ি দিয়েছেন পরলোকে৷ এর মধ্যে রয়েছেন নায়করাজ রাজ্জাক, ঢাকা উত্তরের সিটি মেয়র আনিসুল হক, সংগীতশিল্পী লাকি আখন্দ, বারি সিদ্দিকি, আব্দুল জব্বার এবং কবি সৈয়দ শামসুল হক৷

বাংলাদেশে ২০১৭ সালে সাবেক কূটনীতিক, শিক্ষক, সাংবাদিক, চিকিৎসক, আইটি বিশেষজ্ঞ, রাজনৈতিক নেতা ও ব্যবসায়ীসহ অনেকে গুম, অপহরণ ও নিখোঁজের শিকার হন৷ তাদের কেউ ফিরে এসেছেন আবার কেউ আসেননি৷ আবার কেউ নিখোঁজ হওয়ার অনেক দিন পর আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী তাকে গ্রেপ্তার দেখিয়েছে৷ বিভিন্ন পেশার মানুষ নিখোঁজের মধ্য দিয়ে এববছর নিখোঁজ এবং গুমের ঘটনা সাধারণের মনে উদ্বেগকে বাড়িয়ে দিয়েছে৷

এছাড়া এবার বছর জুড়ে আলোচনায় ছিল প্রশ্নপত্র ফাঁস এবং পাঠ্যপুস্তক বিতর্ক৷ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা থেকে শুরু করে দ্বিতীয় শ্রেণির পরীক্ষার প্রশ্নপত্রও ফাঁস হয়েছে৷ আর শিক্ষা খাতে দুর্নীতি বছরের শেষে নতুন আলোচনার জন্ম দিয়েছে৷ এমনকি শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ শিক্ষা ক্ষেত্রে সহনীয় মাত্রায় দুর্নীতি অনুমোদনের কথা বলেন৷ সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এম হাফিজ উদ্দিন খান বলেছেন,‘‘শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংস করে দেয়া হচ্ছে৷ মানেরও অধঃপতন ঘটছে৷ শিক্ষায় দুর্নীতি পরিস্থিতিকে ভয়াবহ করে তুলেছে৷”

হাফিজ বলেন, ‘‘দেশে দুর্নীতি বেড়েছে৷ রাজনৈতিক পরিস্থিতির কোনো উন্নতি হয়নি, কথা বলার স্বাধীনতা কমেছে৷ আর  প্রধান বিচারপতিকে পদত্যাগে বাধ্য করার মধ্য দিয়ে দেশের বিচার ব্যবস্থার প্রতি মানুষের আস্থার সংকট দেখা দিয়েছে৷ একটি রায়কে কেন্দ্র করে একজন প্রধান বিচারপতির পদত্যাগের ঘটনা নজীরবিহীন৷”

সংবিধানের ষোড়শ সংবিধান বাতিলের রায় আপিলে বহাল রাখা নিয়ে প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা চাপের মুখে পড়েন৷ ওই রায়ের মধ্য দিয়ে বিচারপতিদের অভিসংশনে সংসদের ক্ষমতা বাতিল হয়ে যায়৷ এরপর ছুটি নিয়ে এসকে সিনহা অসুস্থতা দেখিয়ে দেশত্যাগ করেন৷  পরে ১১ নভেম্বর বিদেশ থেকেই পদত্যাগ পত্র পাঠিয়ে দেন৷

বছরের শুরুতে সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে একটি ভাস্কর্য স্থাপন নিয়েও বিতর্ক সৃষ্টি হয়৷ এটি অপসারণ নিয়ে আন্দোলনের হুমকি দেয় হেফাজতে ইসলাম৷ অন্যদিকে ভাস্কর্য না সরানোর পক্ষে অবস্থান নেয় সুশীল সমাজের অনেকে৷ শেষপর্যন্ত ২৭ মে সুপ্রিম কোর্টের মূল প্রাঙ্গণ থেকে সরিয়ে ভাস্কর্যটি আদালতের বর্ধিত(অ্যানেক্স) ভবনের সামনে স্থাপন করা হয়৷

এছাড়া চলতি বছরে চালের দাম অতীতের সব রেকর্ড ভেঙ্গে ফেলেছে৷ সরকারকে চাল আমদানি করতে হয়েছে৷ পেঁয়াজের দামও রেকর্ড বেড়েছে৷ এই অভিঘাত নতুন বছরেও অব্যাহত থাকতে পারে৷

বাংলাদেশে ২০১৮ সালকে নির্বাচনের বছর হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে৷ নির্বাচন সুষ্ঠু না হলে দেশে আরো খারাপ পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা৷ সুশাসনের জন্য নাগরিক- সুজন-এর প্রধান ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেন, ‘‘২০১৭ নির্বাচনের প্রস্তুতির বছর ছিল। নির্বাচন কমিশন কতটা প্রস্তুত তা বোঝা যাচ্ছে না। তবে যদি নির্বাচন ভালো না হয় তাহলে দেশে আরো খারাপ পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে। দেশে সুশাসন আসেনি। গণতন্ত্র না এলে সুশাসন আসবে না৷’’

হাফিজউদ্দিন খান বলেন, ‘‘২০১৭ সালে রাজনৈতিক পরিস্থিতি আরো খারাপ হয়েছে৷ রাজনৈতিক পরিবেশের অবনতি ঘটেছে৷ দেশের মানুষ এখন আর প্রতিবাদও করে না৷ তিনি আরো বলেন, ‘‘দেশে সংঘাতময় রাজনৈতিক পরিবেশ রয়েই গেছে৷ কোনো সমঝোতা এবং রাজনৈতিক পরিস্থিতি উন্নতির কোনো সম্ভাবনা আমি দেখছি না৷”

২০১৭ সালে বাংলাদেশে গণপরিবহন ব্যবস্থায় উবার নতুন আলোচনার জন্ম দিয়েছে, আলোচনায় এসেছে পাঠাও৷ সিএনজি অটোরিকশা এবং ট্যাক্সি ক্যাবের দৌরাত্ম্যের মুখে এই দু’টি পরিবহন সেবা রাজধানীবাসীকে কিছুটা হলেও স্বস্তি এনে দিয়েছে৷ আর এই সেবা এখন বিভাগীয় ও জেলা শহরেও সম্প্রসারণের দাবি উঠেছে৷

এবছর জিডিপি-তে রেকর্ড পরিমাণ প্রবৃদ্ধি হয়েছে,  যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি৷ বিবিএস-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০১৬-১৭ সালে জিডিপিতে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৭ দশমিক ২৮ শতাংশ, যেখানে লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৭ দশমিক ২৷ ২০১৫-১৬ সালের তুলনায় এই প্রবৃদ্ধি ০ দশমিক ১৭ ভাগ বেশি৷ ফলে জিডিপির আকার বেড়ে হয়েছে ২৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার৷ এই দুই বছর বাদ দিলে আগে জিডিপিতে প্রবৃদ্ধি ছিল ৬ শতাংশের ঘরে৷

বাংলাদেশের মানুষের এখন মাথাপিছু আয় বছরে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৬১০ মার্কিন ডলার, বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় ১ লাখ ২৮ হাজার ৮০০ টাকা৷ আর এ বছরই শুরু হয়েছে পদ্মা সেতুর স্প্যান বসানোর কাজ৷ অনেক বিতর্কের পর নিজস্ব অর্থায়নেই এই সেতু নির্মাণ করছে বাংলাদেশ৷

রেশমী নন্দী, DW

পড়া হয়েছে ১৪৫ বার

( বি:দ্রঃ আপনভূবন ডটকম -এ প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও, কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। কপিরাইট © সকল সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আপনভূবন ডটকম )

আপনার ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে মতামত প্রদান করতে পারেনঃ