এই রাজ্জাককেই উপেক্ষা করেছিল বাংলাদেশ!

ফেব্রুয়ারি ৮, ২০১৮, ২:৫৫ অপরাহ্ণ

চার বছর পর টেস্ট দলে ফিরেই অসাধারণ আবদুর রাজ্জাক। ছবি: প্রথম আলোমধ্যাহ্ন বিরতিতে ড্রেসিংরুমের ফেরার পথে সতীর্থ-দর্শকদের অভিনন্দনে সিক্ত হলেন আবদুর রাজ্জাক। ঢাকা টেস্টের মাত্রই একটা সেশন গেল—এখনই অভিনন্দন! কেন নয়? ঢাকা টেস্টের প্রথম সেশন রাজ্জাক যা করেছেন, তাতেই বড় অভিনন্দন তাঁর পাওনা হয়ে গেছে!

ঠিক চার বছর পর টেস্টে ফিরেছেন রাজ্জাক। ‌‘রাজে’র ফেরাটাও কী রাজসিক! শুধু ঘরোয়া ক্রিকেটের চৌহদ্দিতে আটকে থাকা চারটা বছরের যন্ত্রণা, আফসোস সব আজ লাভা উদ্‌গীরিত হয়ে বেরোল তাঁর একেকটি ডেলিভারিতে, একেকটি ‘কড়া বাঁকে’। ঢাকা টেস্টের প্রথম সেশনে রাজ্জাক বাংলাদেশকে সবচেয়ে সুন্দরতম মুহূর্তটা উপহার দিলেন ২৮তম ওভারে। প্রথমে দানুস্কা গুনাতিলকাকে মিডঅফে মুশফিকুর রহিমকে ক্যাচ বানিয়ে, ঠিক পরের বলেই সূক্ষ্ম বাঁকে দিনেশ চান্ডিমালকে বোল্ড করে হ্যাটট্রিকের সামনে রাজ্জাক! ২ উইকেটে ৯৬ থেকে হুট করে শ্রীলঙ্কার স্কোর হয়ে গেল ৪ উইকেটে ৯৬!
এক স্লিপ, সিলি পয়েন্ট, ফরোয়ার্ড শর্ট লেগ, ব্যাকওয়ার্ড শর্ট লেগ, গালি ও শর্ট এক্সট্রা কাভার—রাজ্জাক যেন হ্যাটট্রিকের সুযোগটা কাজে লাগাতে পারেন, নতুন ব্যাটসম্যান রোশেন সিলভাকে মৌমাছির মতো ঘিরে ধরলেন ক্লোজ ইন ফিল্ডাররা। না, রাজ্জাক শেষ পর্যন্ত পারেননি অলক কাপালি-সোহাগ গাজীর পাশে নামটা বসাতে। পারেননি বাংলাদেশের তৃতীয় বোলার হিসেবে টেস্টে হ্যাটট্রিক করতে!
তবে যেটি করেছেন, সেটির গুরুত্ব কম নয়। স্পিন-সহায়ক উইকেটকে শতভাগ কাজে লাগিয়ে ঢাকা টেস্টের শুরুতেই শ্রীলঙ্কাকে নাচিয়ে ছেড়েছেন। প্রায় ৮৫ শতাংশ বল ভালো লেংথে ফেলে উইকেটকে দুর্দান্তভাবে কাজে লাগিয়েছেন। দুই দল যে স্পিন-যুদ্ধে নেমেছে, তাতে অগ্রণী ভূমিকা রেখে চলেছেন। বলবেন, সেটা তো তাঁকে রাখতেই হবে। সাকিব আল হাসান যে ভূমিকাটা রাখতেন, সেটি তাঁকেই করতে হবে। গত ২৫ জানুয়ারি ত্রিদেশীয় সিরিজে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে লিগ পর্বের শেষ ম্যাচে রাজ্জাকের হাতে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৫০০ উইকেট প্রাপ্তির ক্রেস্ট তুলে দিয়েছিলেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। তখন কে জানতে কদিন পর সাকিবের দায়িত্বটা রাজ্জাকের কাঁধে বর্তাবে!
সেটিই যদি হয়, একটা প্রশ্নও এসে যায়, এই রাজ্জাককে কিনা দলে ডেকেও টিম ম্যানেজমেন্ট চট্টগ্রাম টেস্টে বিবেচনাতেই আনেনি! উল্টো তাঁকে নিয়ে কী নাটকটাই না হলো গত কদিন। এই ছেড়ে দেয়, এই ধরে রাখে—তীব্র মানসিক অস্থিরতার মধ্য কাটানো রাজ্জাক একাদশে ফিরেই দেখিয়ে দিলেন, বাংলাদেশ দলে তাঁর মতো অভিজ্ঞজনের কী দরকার!
লাঞ্চ থেকে ফিরেই কুশল মেন্ডিসকে বোল্ড করে টেস্টে ক্যারিয়ার সেরা বোলিংটা করে ফেলেছেন। ইনিংসে ৫ উইকেট পাওয়ার স্বাদ কখনো পাননি টেস্টে, রাজ্জাকের সামনে সেটির সুযোগও থাকছে। তার চেয়ে বড় সুযোগ প্রত্যাবর্তনটা আরও রঙিন, আরও রাজসিক করা! তাতে যে দীর্ঘ উপেক্ষার উত্তম জবাব হয়! ওহ, এখানেও চন্ডিকা হাথুরুসিংহে চলে আসছেন। বাংলাদেশের কোচ থাকার সময় নানা বিতর্কিত সিদ্ধান্তের পরও তিনি মুমিনুল হককে তবুও দলে রেখেছিলেন। আর রাজ্জাকের জন্য যে দরজাটাই খোলেননি! prothom alo

পড়া হয়েছে ৫৫ বার

( বি:দ্রঃ আপনভূবন ডটকম -এ প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও, কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। কপিরাইট © সকল সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আপনভূবন ডটকম )

আপনার ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে মতামত প্রদান করতে পারেনঃ