সাদা চুল নিমিষে কালো করার ঘরোয়া উপায়

এপ্রিল ২৪, ২০১৮, ১১:৩৭ অপরাহ্ণ

অফিসে একবার ফেল করেছেন তো বিপদে পড়েছেন। এমন হাজারো চিন্তা আপনার মাথার মধ্যে গেঁথে থাকে। অগত্যা চিন্তার ফলে শুধু টার্গেট রিচ নয়, একই সঙ্গে মাথার চুল ছেঁড়া প্রতিদিনের কাজ হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর এ কারণেই মাত্র ৩০ বছর বয়সেই পেকে যাওয়া শুরু হয়েছে আপনার। এ অবস্থার শিকার এখন অনেকেই।

এই কারণেই আজ এমন কিছু প্রকৃতিক হেয়ার মাস্কের প্রসঙ্গে আলোচনা কর হল, যা নিয়মিত চুলে লাগালে পেকে যাওয়া চুল কালো হতে বেশি সময় সাগবে না। সেই সঙ্গে চুলের উজ্জ্বতা এবং সৌন্দর্যও বৃদ্ধি পাবে চোখে পড়ার মতো। যে যে হেয়ার মাস্কগুলি এক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে, সেগুলি হলো-

আমলা ও হেনার প্যাক: এই হেয়ার মাস্কটি বানাতে প্রয়োজন পরবে এক কাপ হেনার পেস্ট, তিন চামচ আমলার পাউডার এবং এক চামচ কফি পাউডারের। সবকটি উপাদান একসঙ্গে মেশানোর পর ভাল করে চুলে লাগিয়ে কম করে এক ঘন্টা অপেক্ষা করতে হবে।

সময় হয়ে গেলে সালফার ফ্রি শ্যাম্পু দিয়ে ভাল করে চুলটা ধুয়ে নেবেন। এইভাবে মাসে একবার চুলের পরিচর্যা করলে চুল কুচকুচে কালো হয়ে তো যাবেই, সেই সঙ্গে চুলের গোড়ায় পুষ্টির ঘাটতি দূর হবে। হওয়ার কারণে হেয়ার ফলও কমতে শুরু করবে। লাল চা: সাদা চুলকে কালো করতে লাল চায়ের কোনো বিকল্প হয় না বললেই চলে। আসলে এই পানীয়টিতে উপস্থিত বেশ কিছু উপকারি উপাদান চুলের অন্দরে প্রবেশ করে চুলের রং বদলে দেয়। শুধু তাই নয়, নিমেষে চুলকে যদি উজ্জ্বল বানাতে হয়, তাহলেও কাজে লাগাতে পারেন লাল চাকে।

এখন প্রশ্ন হল চুলকে কালো করতে কীভাবে কাজে লাগাতে হবে লাল চাকে? এক্ষেত্রে এক কাপ জলে ২ চামচ চায়ের পাতা ফেলে পানিটা ফোটাতে হবে। যখন দেখবেন পানি ফুটতে শুরু করেছে, তখন আঁচটা বন্ধ করে পানি ঠান্ডা করে নিতে হবে। এরপর মিশ্রনটি ভাল করে চুলে লাগিয়ে কম করে ১ ঘন্টা অপেক্ষা করে হার্বাল শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফলতে হবে।

প্রসঙ্গত, ২ সপ্তাহে ১ বার এই ঘরোয়া টোটকাটিকে কাজে লাগালে উপকার পাবেন একেবারে হাতেনাতে।

হেনা রেমেডি: এতে রয়েছে অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল প্রপাটিজ, তেমনি রয়েছে আরো অনেক উপকারি উপাদান। এটি স্কাল্পে সংক্রমণ হওয়ার আশঙ্কাকে যেমন কমায়, তেমনি সাদা চুলকে নিমেষে কালো করে দিতেও বিশেষ ভূমিকা নেয়। সেই সঙ্গে চুলের অন্দরে পি এইচ লেভেল বাড়ানোর মধ্যে দিয়ে চুলের সৌন্দর্য বাড়াতেও সাহায্য করে থাকে। এক্ষেত্রে ২ চামচ চা পাতা, ৪ চামচ হেনা পাউডার, ১ চামচ লেবুর রস এবং ১ চামচ আমলা পাউডারের প্রয়োজন পরবে।

প্রথমে এক কাপ পানিতে হেনা পাউডারটা ৮ ঘন্টা ভিজিয়ে রাখতে হবে। অন্যদিকে এক কাপ চায়ে চায়ের পাতা পেলে পানিটাকে ফুটিয়ে নিতে হবে। তারপর পানি ঠান্ডা করে তাতে হেনার পেস্টটা মিশিয়ে কিছু সময় অপেক্ষা করতে হবে। সময় হয়ে গেলে তাতে লেবুর রস এবং আমলা পাউডারটা মিশিয়ে মিশ্রনটি চুলে লাগিয়ে কিছু সময় অপেক্ষা করতে হবে। যখন দেখবেন পেস্টটা শুকতে শুরু করেছে, তখন ভাল করে চুলটা ধুয়ে ফেলতে হবে।

প্রসঙ্গত, মাসে একবার এইভাবে চুলের পরিচর্যা করলেই দেখবেন কেল্লা ফতে!

নারকেল তেল এবং লেবুর রস: এই দুটি উপাদান চুলের অন্দরে প্রবেশ করে পিগমেন্ট সেলের গ্রোথকে আটকে দেয়। এর ফলে সাদা হয়ে যাওয়া চুল তো কালো হয়ই, সেই সঙ্গে আরো চুল সাদা হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনাও কমে। তাই তো চটজলদি সাদা চুলকে কালো করতে এই দুই প্রকৃতিক উপাদানকে কাজে লাগাতে ভুলবেন না।

প্রসঙ্গত, এই হেয়ার প্যাকটি বানাতে প্রয়োজন পরবে ২ চামচ নারকেল তেল এবং ১ চামচ লেবুর রসের। এই দুটি উপাদান একসঙ্গে মিশিয়ে তা স্কাল্পে লাগিয়ে ভাল করে মাসাজ করতে হবে। তারপর ৩০ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলতে হবে চুলটা। প্রসঙ্গত, এই ঘরোয়া টোটকাটির সুফল পেতে সপ্তাহে ২ বার এটিকে কাজে লাগাতে হবে।

কারি পাতা: ছোট একটা পাত্রে ৩ চামচ নারকেল তেলে নিয়ে তাতে পরিমাণ মতো কারি পাতা ফেলে কিছু সময় গরম করে নিতে হবে। যখন দেখবেন কারি পাতাটা কালো হতে শুরু করেছে, তখন আঁচটা বন্ধ করে দিতে হবে। এবার তেলটা ঠান্ডা করে সেটি স্কাল্পে লাগিয়ে ভাল করে মাসাজ করতে হবে। এরপর এক ঘন্টা অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলতে হবে চুলটা। এইভাবে সপ্তাহে ২-৩ বার চুলের পরিচর্যা করলে দেখবেন কুচকুচে কালো চুলের অধিকারি হতে দেখবেন সময় লাগবে না। বোল্ডস্কাই

পড়া হয়েছে ২৪৬ বার

( বি:দ্রঃ আপনভূবন ডটকম -এ প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও, কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। কপিরাইট © সকল সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আপনভূবন ডটকম )

আপনার ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে মতামত প্রদান করতে পারেনঃ