সিঙ্গাপুরের বাংলাদেশী রেষ্টুরেন্ট--মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু এর ব্লগ--আপন ভূবন ব্লগ - আপন প্রতিভার সন্ধানে 



প্রথম পাতা » মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু এর ব্লগ » সিঙ্গাপুরের বাংলাদেশী রেষ্টুরেন্ট

সিঙ্গাপুরের বাংলাদেশী রেষ্টুরেন্ট

লিখেছেন : মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু       ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ রাত ১০:০৪


০টি মন্তব্য   ১২৯ বার পড়া হয়েছে


সিঙ্গাপুরের বাংলাদেশী রেষ্টুরেন্ট-কর্মচারীদের ব্যাবহারে অতিষ্ট
মোস্তফার পাশেই ডেস্কার রোড।রয়েল রোড। সকাল দুপুর সন্ধ্যা রাত খাবারের রেস্টুরেন্ট হোটেল জমজমাট।
রেষ্টুরেন্ট গুলির মধ্যে
বাসমতি,ফখরুদ্দিন,কড়াই গোস্ত,ধান সিঁড়ি,বৈশাখী,শাপলা,ঢাকা,মোহাম্মদী,ভোজন,হিরাঝিল,সাবেক লামিয়া,ঘরোয়া, ফাস্টফুড,বাংলাদেশ,ইস্তানা,ইত্যাদীরেষ্টুরেন্ট গুলির রান্নাঘর থেকে টেবিল,তন্দুর থেকে তেল,পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা,খাবারের মান,স্টাফদের ব্যাবহার,বাসি কিংবা তাজা খাবার, নমনীয়,কমনীয়,রুষ্টতা নিয়ে লেখা কিংবা ভিডিও পরিবেশনের সময় হয়েছে। অনেকে ভাবে চাকরী করি সংবাদ পরিবেশন আমার কাজ নয়।ফেসবুকে লেখতে সাংবাদিক হতে হয়না।আর এই সব লেখলে প্রমান দিলে ভিডিও সহ, সিঙ্গাপুর সরকার পুরস্কৃত না করলে কয়েকদিনের জন্য ঠিকই তালা ঝুলবে।

দেশী, দেশী আমি বললেও সকালে ডিঊটিতে আসার সময় খাবার আনতে গেলে যা শো অফ করে, মনে হয় ক্রেতা সাধারণ গরু ছাগল।

রেষ্টুরেন্ট মালিকদের বৈধ অবৈধ ব্যাবসা,এদের ব্যাক্তি চরিত্র,নারী কেলেংকারী,কিছুই বাদ দেয়া উচিৎনা।হুন্ডির সাথে জড়িত তাবলিগী ভাইবেরাদাও।

সবাই মন্দ লোক নয়।এর মাঝে আছে কিছু লোক। এরা এখন হাওয়ায় উড়ছে।এরা এক সময় অনেকে শ্রমিক থাকলেও এখন শ্রমিকদের তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করে। ছোট জাতের ভাবে। নিয়মের বহির্ভুত কর্ম করে কাষ্টমারকে নিয়ম শেখায়।সিঙ্গাপুরের শ্রম বাজার আই পি, হুন্ডি, কাম চোরদের কারণে নষ্ট হলেও এই সব হাউজ ব্যাবসায়ী,রেষ্টুরেন্ট ব্যাবসায়ীরা ও দায়ী। কথায় কথায় মালামালের দাম বেশি,ঘর ভাড়া,স্টাফ সেলারীর দায় দেখিয়ে এক ডলারের নিচে কোন আইটেম বিক্রি হবেনা ঘোষনা দেয়, অথচ তাদের দামী বাড়ি,দামি গাড়ি ঠিকই হয়।কেউ যদি ভাগ করে খায়, একটা রুটির সাথে একটু ঝোল চায় তাদের চোখ আর বুক ফেটে যায়।তারা বুঝতে চায়না কত কষ্ট, কত লজ্জায় একজন শ্রমিক এই আবদার করতে পারে।

এরা ভাবে মানুষ কিছুই বোঝেনা। আমি আবারো বলছি সবাই এক নয়। তবে যত দামী কিংবা নামী রেষ্টুরেন্ট তত নিন্ম তাদের ব্যাবহার,আচার,আচরন।

সিঙ্গাপুরের বাংলাদেশী রেষ্টুরেন্ট,কর্মচারী আর মালিকদের ব্যাবহারে অতিষ্ট।অল্প দামে কিংবা হাফ চাইলে ব্যাবহার খারাপ।এমন কি পঞ্চাশ সেন্টের কোন ভর্তা ভাজি বিক্রি করতে চায়না। প্যাকেট কৃত খাবার নষ্ট হলে রেষ্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় বলে সাফ বলে দেন।মানে নিলে নেন,নাইলে কাইটা পড়েন।ক্রেতা তখন অসহায়।

সিঙ্গাপুর
১-২-২০১৮ ইং




মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বাবু,সিঙ্গাপুর
ব্লগ লিখছেন ২ বছর ২ মাস ২৩ দিন, মোট পোষ্ট ৯৩টি, মন্তব্য করেছেন ০টি,          



এই ধরনের আরো কিছু পোস্ট.


বাবর আলী, মুখোশের আড়ালে মুখোশ!

ইলিশ গুঁড়ি সন্ধ্যায় কফির চুমুক

কবি বেঁচে থাকে কবিতার মাঝেই

বাঁচাও,বাঁচাও,বাঁচাও

ইচ্ছে হয়
 

মন্তব্য সমূহঃ

মন্তব্য করতে লগিন করুন।

ইমেইল: পাসওয়ার্ড: রেজিস্ট্রেশন করুন